আজ হেফাজতের নেতা মামুনুল হকে গ্রেপ্তার করেন - জাহান বাংলা নিউজ

 

হেফাজতের নেতা মামুনুল হক গ্রেপ্তার
হেফাজতের ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হকে আজ রোববার (১৮ এপ্রিল) ১২টা ৫০ মিনিটে গ্রেপ্তার করেন পুলিশ। মামুনুল হকে মোহাম্মদপুর জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বেশ কিছু দিন ধরে তিনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারিতে ছিলেন।
মামুনুল হকে গ্রেপ্তারের পর দুপুর ২টার দিকে সংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তেজগাঁও বিভাগের উপ কমিশনান মোঃ হারুন আর রশিদ।

গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে বিক্ষোভ করে হেফাজতে ইসলাম। মোদির বিরোধিতায় প্রথমে ঢাকায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের সামনে বিক্ষোভে সহিংসতা হয়, তার জেরে চট্টগ্রামের হাটহাজারী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রাণঘাতী সংঘাত হয়।
ডিসি হারুন বলেন, ‘২০২০ সালের মোহাম্মদপুর থানার একটি ভাঙ্গচুর ও নাশকতার মামলার তদন্ত চলছিল। তদন্তে হেফাজত নেতা মামুনুলের সম্পৃক্ততার বিষয়টি সুস্পষ্ট হওয়ায় আমরা তাকে গ্রেফতার করেছি। মোহাম্মদপুর থানার মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।



এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, তা আপনারা সবাই জানেন।’ আরও বলেন, ‘জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হাটহাজারীর ঘটনার পর থেকেই তিনি নজরদারিতে ছিলেন। সবকিছু মিলিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘আগামীকাল সোমবার (১৯ এপ্রিল) তাকে আদালতে হাজির করা হবে। তবে রিমান্ড নেওয়া হবে কি-না তা ঊর্ধ্বতনদের সঙ্গে আলাপ করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছে।’

পুলিশ ওপর হামলা ও রিসোর্টে ভাঙ্গচুর ও সরকারি কাজে বাধা এছাড়াও যানবাহন অগ্নিসংযোগ ও ককটেল বিস্ফোরণের অভিযোগ মামুনুল হকসহ ৮৩, ৪১ ও ৪২ জন নাম উল্লেখ করে মামলা হয়। এছাড়াও অজ্ঞতা ৫০০ - ৬০০,  ২৫০ - ৩০০ ও ২৫০ - ৩০০ মামলা করা হয়েছে।

সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলা এই মামলায় প্রধান আসামি হেফাজ ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক। এবং যানবাহন অগ্নিসংযোগ ও ককটেল বিস্ফোরণের মামলায় হেফাজত ইসলাম, জাতীয় পার্টি ও বিএনপি নেতাকর্মীদের নাম উল্লেখ করে।



Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url