ঈদের আগে ভারত থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বেড়েছে মসলার আমদানি - জাহান বাংলা নিউজ

ঈদের আগে ভারত থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বেড়েছে মসলার আমদানি - জাহান বাংলা নিউজ
চিত্রঃ হিলি স্থলবন্দর আমদানি

বাংলাদেশ মসলার আমদানি কমে যাওয়ার ফলে বাজারে মসলার সঙ্কট দেখা দেয়। এমতাবস্থায় এবং ঈদকে সামনে রেখে মসলার আমদানি বাড়িয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এতে দিনাজপুর জেলার হাকিমপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বেড়েছে জাতীয় মসলা আমদানি বেড়েছে জিরাসহ সব ধরনের মসলার আমদানি। 

এতে যেমন বেড়েছে রাজস্ব আয় তেমনি বেড়েছে কর্মরত শ্রমিকদের আয়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বাংলাদেশ মসলা আমদানি হলেও করোনাভাইরাসের কারণে জাহাজ না আসাই তারা পণ্যের এলসিডি নিচ্ছে না বলেন, হিলি স্থলবন্দর আমদানি - রফতানি কারক গ্রুপ সভাপতি হারুন উর রশিদ এবং জিরা আবদানি কারক রাজীব দত্তক এই কথা জানিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দেশের বাজারে মসলার চাহিদা বেড়েছে এর পাশাপাশি দামও খানিকটা চড়া। চাহিদার কথা মাথায় রেখে এবং দাম সহনীয় পর্যায়ে আনার জন্য ভারত থেকে মসলা আমদানির পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। স্থলবন্দর দিয়ে জিরা, এলাচি, লং, কালো জিরা, হলুদ, আদা, শুকনো মরিচ, মেথিসহ বিভিন্ন মসলা আমদানির পরিমাণ বেড়েছে।

এই সকল মসলা দেশে বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হচ্ছে। বাজারে মসলার সরবরাহ বাড়ায় মসলাম দাম স্থিতিশীল রয়েছে। কিছুদিন আগে বাজারে জিরা মসলার দাম প্রতি কেজি ৪০০ টাকার ওপরে ওঠেছিল। মসলার সরবরাহ বাড়ায় জিরা মসলা দাম এখন ৩০ড় টাকার কমে বিক্রি করা হচ্ছে।

সাইফুল ইসলাম হিলি স্থলবন্দরের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট বলেন, ঈদকে ঘিরে স্থলবন্দর দিয়ে জিরাসহ অন্যান মসলার আমদানি বেড়েছে। এবং হিলি স্থলবন্দরের শ্রমিক জাহিদুল ইসলাম বলেন,  মসলার আমদানি বেড়েছে এতে আমাদের কাজ বেড়েছে ও পারিশ্রমিকও বেশ বেড়েছে। 

মসলা আমদানি বেড়েছে এতে রাজস্ব আয়ও বেড়েছে। গত অর্থবছর জাুলাই থেকে এপ্রিল মসলা আমদানি হয়েছিল  ৯ হাজার টন এবার একই সময় মসলা আমদানি হয়েছে ২২ হাজার টন। এই বছরে রাজস্ব আয় নেয়া হয়েছে ৭০ কোটি ১৫ লাক্ষ টাকা যা গত বছরে থেকে দ্বিগুণ বেড়েছে বলে জানিয়েছে, হিলি স্থল শুল্ক স্টেশন উপ-কমিশনার সাইদুল আলম।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url