আগামী ১ আগস্ট গার্মেন্টসহ সকল রপ্তানিমুখী শিল্পকারখানা খুলে দেওয়া হবে - জাহান বাংলা নিউজ

১ আগস্ট বাংলাদেশের সকল গার্মেন্ট খুলা হবে


বাংলাদেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে গার্মেন্টসহ বিভিন্ন রপ্তানিমুখী শিল্পকারখানা খুলে দেওয়া হবে।

আজ শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের উপ-সচিব মো. রেজাউল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে।

আগামী ১ আগস্ট (রোবার) থেকে সকল গার্মেন্টসহ রপ্তানিমুখী শিল্পকারখানা খুলে দেয়ার কথা জানিয়েছে সরকার।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে করোনার সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় আগামী ১ আগস্ট সকাল ৬টা থেকে রাপ্তানিমুখী সব শিল্প ও কলকারখানা বিধিনিষেধের আওতার বহির্ভূত রাখা হলো।

দেশের রাপ্তানিখাতসহ সব উৎপাদনমুখী শিল্প-কারখানা স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেওয়ার দাবি জানায় “ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই)”। গত বৃহস্পতিবার (২৯ জুুলাই)  মন্ত্রিপরিষদের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানিয়েছেন।

করোনায় বিধিনিষেধের আওতায় সব শিল্প-কারখানা বন্ধ রাখায় দেশের অর্থনৈতিক কার্যক্রমের প্রাণশক্তি উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। ফলে সাপ্লাই চেইন (সরবরাহ ব্যবস্থা) সম্পূর্ণভাবে ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। আগামীতে পণ্য-সামগ্রী সঠিকভাবে সরবরাহ ও বাজারজাত না হলে পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি পাবে। এতে স্বল্প আয়ের ক্রেতারা ভোগান্তির শিকার হবেন। পাশাপাশি রাপ্তানি খাতের উৎপাদন ব্যবস্থা বন্ধ থাকলে সময়মতো পরবর্তী রফতানি অর্ডার অনুযায়ী সাপ্লাই দেওয়া সম্ভব হবে না। এতে রফতানি অর্ডার বাতিল হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে জনিয়েছেন, এফবিসিসিআই সভাপতি ও এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন।

সূত্রঃ সময়ের কণ্ঠস্বর


স্বীকারোক্তিঃ এখানে উপস্থাপিত সকল তথ্যই বিভিন্ন নিউজ ওয়েবসাইট ও টিভি চ্যানেল ও ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করা হয়। যেহেতু কোন মানুষই ভুলের ঊর্দ্ধে নয় সেহেতু আমাদেরও কিছু অনিচ্ছাকৃত ভুল থাকতে পারে। সে সকল ভুলের জন্য আমরা আন্তরিকভাবে ক্ষমাপ্রার্থী। এই তথ্যের উপর কোন অভিযোগ থাকলে আমাদের জানাবে। ( সকল তথ্যর নিচে কোথায় থেকে নেওয়া হয়েছে তা লিখা আছে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। ই-মেইলঃ [email protected] অথবা এইখানে ক্লিক করুন।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url